• সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

কবিতার বৃক্ষ তিনি, আমাদের ছায়া দেন পরম মমতায়

দিলারা হাফিজ

প্রকাশিত: ১৩:২৮, ১১ নভেম্বর ২০২১

ফন্ট সাইজ
কবিতার বৃক্ষ তিনি, আমাদের ছায়া দেন পরম মমতায়

কবি আসাদ চৌধুরীর সংগে লেখক

দেশবরেণ্য কবি আসাদ চৌধুরী জন্ম নিয়েছিলেন বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়ায়। সময়টা ছিলো ১৯৪৩ সালের নভেম্বরের ১১ তারিখ। 

ষাটের প্রধান কবিদের অন্যতম একজন তিনি। সুবচনে, সুভাষণে, কবিতা-কথনে তিনি ভিন্ন কণ্ঠস্বরের এক জীবন্ত মিথস্ক্রিয়া। 

বাংলা কবিতার ধারায় যুক্ত করেছেন,দৈনন্দিন জীবনের সহজ ও অনায়াস লব্ধ শব্দমালার এক অনাড়ম্বর কাব্য-সংসার—যেখানে আজো সূর্য হলেন ঘড়ি।

প্রথম কাব্যেই ‘তবক দেয়া পান’-এর আমন্ত্রণ জানিয়ে যিনি এদেশের সংখ্যা গরিষ্ঠ জনগণের অন্যতম এক কবি ও শিল্পী হয়ে উঠেছেন, তিনি কবি আসাদ চৌধুরী।

সদানন্দ প্রকৃতির মতো নিরাভরণ এবং মরমিয়াবাদের  অনন্য এক কবিতা-সাধক।তাঁর কবিতার পরতে পরতে যেমন আছে ইতিহাস, দর্শন,সর্বোপরি মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের দীপাবলি।

নিসর্গের আলো-ছায়া, প্রেম ও প্রকৃতি মিলে কাব্যের শিল্পচিহ্ন মুদ্রিত হয়ে আছে তাঁর ভাষা-ছন্দে,উপমায় ও চিত্রকল্পে। স্বর্ণাভ মুদ্রার মতো কবিতায় ঝলসে ওঠে তাঁর সত্যসমূহ ও শব্দসমূহ। 

সভ্যতার অগ্রগতির পাশাপাশি মূল্যবোধের অবক্ষয় তাঁকে পীড়িত ও ব্যথিত করে।এই সকল ভাবনা ও বিষয়বস্তুর নানা বৈচিত্র্য নিয়েই ১৯৭৫ সালে প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ ‘তবক দেওয়া পান’।

২০০৬ সাল পর্যন্ত প্রকাশিত হয়েছে তাঁর ১২টির অধিক কাব্য গ্রন্থ। এছাড়া প্রবন্ধ-গবেষণা, শিশুতোষ, জীবনীগ্রন্থ,অনুবাদ, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, সম্পাদনা গ্রন্থসহ বাংলা সাহিত্যে তাঁর অবদানের জন্যে পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য ১৯৮৭ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার এবং ২০১৩ সালে একুশে পদক লাভের ঘটনা দুটি একজন কবির কাব্যচর্চা পথের অনুপ্রেরণা এবং জাতীয় স্বীকৃতির অন্যতম অভিভাষণ।

শুভ জন্মদিন আসাদভাই।

লেখক: দিলারা হাফিজ, কবি
আইসবোট টেরেস, টরন্টো

বিভি/এসডি

মন্তব্য করুন: