• NEWS PORTAL

শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

এবার মুখ খুললেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান

প্রকাশিত: ১৮:১৬, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ফন্ট সাইজ
এবার মুখ খুললেন পাকিস্তানের সেনাপ্রধান

ছবি: জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনির

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক পূর্ণাঙ্গ ফলাফল এখনও ঘোষণা করা হয়নি। এরই মধ্যে ইমরান খান এবং নওয়াজ শরিফ নিজ নিজ দলের জয় ঘোষণা করছেন। এমতাবস্থায় শনিবার (১০ জানুয়ারি) পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনির বলেছেন, পাকিস্তানিদের একটি দৃঢ় হাত প্রয়োজন। তিনি বলেন, পাকিস্তানকে ‘অরাজকতা এবং মেরুকরণের’ রাজনীতি থেকে সরে আসতে হবে। 

পাকিস্তানের রাজনৈতিক ভূখণ্ডের বিশাল এলাকাজুড়ে আধিপত্য বিস্তার করেছে দেশটির সামরিক বাহিনী। ১৯৪৭ সালে ভারত থেকে বিভক্ত হওয়ার পর থেকে দেশটির ইতিহাসের প্রায় অর্ধেক সময়ই ক্ষমতায় ছিলেন জেনারেলরা।

সামরিক বাহিনীর এক বিবৃতিতে জেনারেল সৈয়দ আসিম মুনির বলেছেন, ‘২৫ কোটি মানুষের একটি প্রগতিশীল দেশের নৈরাজ্য ও মেরুকরণের রাজনীতি উপযুক্ত নয়। এর থেকে বের হয়ে আসতে জাতির একটি দৃঢ় হাত এবং উত্তোরণের প্রয়াস দরকার।’

সামরিক বাহিনীর সমর্থনেই দেশটিতে রাজনীতিবিদ ও রাজনৈতিক দলগুলোর উত্থান এবং পতন ঘটে থাকে। চলতি বছর সামরিক বাহিনী দেশটির তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দলকে সমর্থন করছে বলে ব্যাপকভাবে বিশ্বাস করা হচ্ছে।

এদিকে  ফলাফলের হিসাবে চমকে দিয়েছেন কারাবন্দী পিটিআই নেতা ইমরান খান। ২৬৫ আসনের মধ্যে প্রকাশিত ২৫৫ আসনের ফলাফলে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন’র চেয়ে অনেক এগিয়ে। তৃতীয় অবস্থানে আছে বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পিপিপি। 

ফলাফল ঘোষণায় দীর্ঘ বিলম্ব হলে সামরিক সংস্থার ভোট কারচুপিতে জড়িত থাকাসহ এমন আরও অনেক অভিযোগ উঠেছে। এরমধ্যে শুক্রবার সেনাবাহিনী-সমর্থিত পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) সর্বাধিক সংখ্যক আসনে নিজেদের বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করেছিল।

সামরিক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘নির্বাচন জয়-পরাজয়ের একটি শূন্য-সমষ্টির প্রতিযোগিতা নয়, বরং এটি ভোটদানের মাধ্যমে জনগণের আগ্রহ জানার একটি অনুশীলন।’

ফরাসি সংবাদমাধ্যম এএফপি প্রকাশিত ওই বিবৃতিতে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান বলেন, ‘রাজনৈতিক নেতৃত্ব এবং তাদের কর্মীদের স্বার্থের ঊর্ধ্বে গিয়ে জনগণের শাসন ও সেবা করার প্রচেষ্টাকেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত। এটিই গণতন্ত্রকে কার্যকরী এবং উদ্দেশ্যমূলক করার একমাত্র উপায়।’ সূত্র: এএফপি

বিভি/এমআর

মন্তব্য করুন: