• NEWS PORTAL

  • বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

শর্টকাট ফাইভ স্টেপ স্কিন কেয়ার রুটিন

ডা.আলম মিথিলা 

প্রকাশিত: ২২:৫১, ১৭ মে ২০২২

আপডেট: ২২:৫২, ১৭ মে ২০২২

ফন্ট সাইজ
শর্টকাট ফাইভ স্টেপ স্কিন কেয়ার রুটিন

ছবিঃ ডা.আলম মিথিলা

আমি একজন এসথেটিক মেডিসিন প্র্যাকটিশনার। অনেকেই আমার কাছে স্কিন কেয়ার রুটিন চায়। আজকে তাই ভাবলাম স্কিন কেয়ার নিয়ে কিছু লিখি। অনেকে দেখি অ্যাডভাইস করেন কোরিয়ান প্রোডাক্ট ব্যবহার করার জন্য। তবে আমার মতে যে প্রোডাক্টের ইনগ্রেডিয়েন্ট পড়া যায় না সে ধরনের প্রোডাক্ট ব্যবহার না করাই ভালো। আমি নিজে খুব অলস। তাই চেষ্টা করি খুব শর্টকাটে স্কিনের যত্ন নেবার। আজকে শর্টকাটে ফাইভ স্টেপ স্কিন কেয়ার রুটিন এর কথা বলবো। 

ক্লিনজিংঃ স্কিনের ধরন বুঝে ভালো একটি ফেসওয়াশ ব্যবহার করবেন। আমাদের একটি ধারণা আছে ফেসওয়াশ করার পরে খুব টান টান লাগলে আমরা ভাবি স্কিন খুব ভালো পরিষ্কার হয়েছে। আসলে সেটি স্কিন ড্রাই হবার লক্ষণ। 

টোনিংঃ যাদের স্কিন ড্রাই তারা এটি বাদ দিবেন। যাদের স্কিন অয়েলি তারা ভালো একটি টোনার ব্যবহার করবেন। 

সেরামঃ স্কিনের ধরন বুঝে সেরাম ব্যবহার করবেন। যাদের বয়স ২০ থেকে ৩০ এর মাঝে তারা ব্রাইটেনিং টাইপের যেমন niacinamide  যুক্ত সেরাম গুলো ব্যবহার করতে পারেন। যাদের  একনে সমস্যা আছে বা একনে স্কার আছে তারা যুক্ত সেরাম ব্যবহার করতে পারেন। 

যাদের বয়স তিরিশের বেশি তারা এন্টি এজিং সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। Retinol যুক্ত সেরাম গুলা এক্ষেত্রে ভাল অপশন। (তবে সব ধরনের সেরাম ব্যবহার করার সময় খেয়াল রাখতে হবে অবশ্যই সানব্লক ব্যবহার করবেন) 

মশ্চারাইজিংঃ সিরাম ব্যবহারের পর সেটি যখন  স্কিনে মিশে যাবে তখন একটি মশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। যাদের স্কিন খুব বেশি অয়েলী তারা এটি বাদ দিতে পারেন। অথবা ওয়াটার বেসড ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। যেমন অ্যালোভেরা জেল। 

সানব্লকঃ এটি সব ধরনের স্কিনের জন্য একটি মাস্ট ডু স্টেপ। চেষ্টা করবেন ফার্মেসি থেকে সানব্লক কিনতে। 

দিনে দুইবার স্টেপগুলো করার চেষ্টা করেন। ইনশাল্লাহ রেজাল্ট পাবেন। 

আমার পরামর্শ হচ্ছে সব ধরনের প্রোডাক্ট গুলো কসমেটিকের দোকান থেকে না কিনে ফার্মেসি থেকে কিনলে অনেক ভালো রেজাল্ট পাবেন। 

 

বিভি/রিসি

মন্তব্য করুন: