• NEWS PORTAL

  • বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

বাড়ছে নদীর পানি, নতুন করে ডুবতে পারে পদ্মাপাড়ের ৩ জেলা

প্রকাশিত: ১৫:১৯, ২৩ জুন ২০২২

ফন্ট সাইজ
বাড়ছে নদীর পানি, নতুন করে ডুবতে পারে পদ্মাপাড়ের ৩ জেলা

সিলেট-সুনামগঞ্জে নামতে শুরু করেছে বন্যার পানি। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র বলছে, পানি কমছে দেশের সব নদীতেই। তবে বেড়েই চলেছে শুধু গঙ্গা-পদ্মার পানি। যার প্রভাব নতুন করে বন্যার কবলে ফেলতে পারে রাজবাড়ী, শরীয়তপুর ও মাদারীপুর জেলার নিম্নাঞ্চল। 

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) বন্যা তথ্য কেন্দ্রের দৈনিক বুলেটিনে এই তথ্যা জানানো হয়। বন্যা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থাটি জানায়, আবহাওয়া সংস্থাগুলোর গাণিতিক মডেলভিত্তিক পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী ৪৮ ঘণ্টায় তিস্তা বেসিন ছাড়া দেশের ভেতরে ও উজানের বিভিন্ন অংশে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টিপাতের শঙ্কা কম। একইসঙ্গে দেশের প্রধান নদীগুলোর পানি কমাও অব্যাহত রয়েছে।

এর ফলে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল ও জামালপুর এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। একইসঙ্গে কিশোরগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল থাকবে।  এছাড়া ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, ধরলা, দুধকুমার এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সব প্রধান নদীর (তিতাস ছাড়া) পানি কমা অব্যাহত থাকতে পারে। স্থিতিশীল থাকবে গঙ্গা-পদ্মা নদীর পানি।

তবে আগামী ৭২ ঘণ্টায় ভারতের হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গে (জলপাইগুড়ি, সিকিম) মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে। যার প্রভাবে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার কাছাকাছি অবস্থান করতে পারে বলেও জানায় বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র।

পর্যবেক্ষণাধীন স্টেশনের তথ্য তুলে ধরে বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র জানায়, দেশের নদনদীর ১০১টি পর্যবেক্ষণ পয়েন্টের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫টি পয়েন্টে পানি বেড়েছে এবং কমেছে ৬৪টি পয়েন্টে। বর্তমানে বিপদসীমার উপরে রয়েছে দেশের নদনদীর ১৯টি পয়েন্টের পানি।

একই সময়ে মাদারীপুরে ৭২ মিলিমিটার ও সিলেটের লালাখাল স্টেশনে ৫০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে বলে জানানো হলেও এই সময় উজানে কোনো বৃষ্টিপাতের তথ্য দেয়া হয়নি বুলেটিনে।
 

বিভি/কেএস

মন্তব্য করুন: