• NEWS PORTAL

  • বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

বিএনপিকে ১২ শর্তে রাজশাহীতে সমাবেশের অনুমতি দিলো জেলা প্রশাসক

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০০:২১, ৩০ নভেম্বর ২০২২

ফন্ট সাইজ
বিএনপিকে ১২ শর্তে রাজশাহীতে সমাবেশের অনুমতি দিলো জেলা প্রশাসক

রাজশাহীতে বিভাগীয় গণসমাবেশ করতে হবে বিএনপিকে ১২টি শর্ত দিয়েছে পুলিশ। আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। জেলা প্রশাসক আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে মাঠটি ব্যবহার করতে বিএনপিকে ইতোমধ্যে অনুমতি দিয়েছে। তবে গণসমাবেশ আয়োজন এবং মাইক ব্যবহারের জন্য আলাদা অনুমতি নিতে হবে পুলিশের। 

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) আবেদন করা থাকলেও রাত পর্যন্ত বিএনপি সেই অনুমতি পায়নি। যদিও অন্তত ১২ শর্তে পুলিশ মাদ্রাসা মাঠেই গণসমাবেশ করার অনুমতি দেওয়ার একটি প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে বিএনপিকে আনুষ্ঠানিকভাবে তা জানানো হবে সমাবেশের মাত্র দুই দিন আগে।

এখন মাদ্রাসা মাঠজুড়ে বসানো হচ্ছে পুলিশের সিসি ক্যামেরা। গত রোববার থেকে কাজ চলছে পুরোদমে। মাঠের চারপাশ ও আশপাশের সড়কসহ পুরো সমাবেশস্থল থাকবে সিসি ক্যামেরার আওতায়। যে কোনো ধরনের অঘটন বা অপ্রীতিকর ঘটনা পর্যবেক্ষণে ফুটেজ সংগ্রহ করা হবে।

এ বিষয়ে আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের প্রধান উৎপল কুমার চৌধুরী বলেন, ‘শুধু সমাবেশস্থলই নয়, গোটা নগরীসহ রাজশাহীর প্রবেশমুখগুলোও সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। সাইবার ক্রাইম ইউনিটের কন্ট্রোল রুম থেকে ক্যামেরাগুলো পর্যবেক্ষণ করা হবে। নজর রাখা হবে বিএনপির নেতাকর্মী ও সমাবেশে আসা ব্যক্তিদের গতিবিধির ওপর।’

রাজশাহী নগর পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক জানিয়েছেন, জানমালের ক্ষয়ক্ষতি না করা, বেলা ২টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে সমাবেশ শেষ করা, সমাবেশস্থলের বাইরে মাইক না লাগানো, আজানের সময় মাইকের শব্দ বন্ধ রাখাসহ অন্তত ১২টি শর্ত দেওয়া হবে বিএনপিকে। এসব শর্তে রাজি থাকলে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

দেশজুড়ে ধারাবাহিক কর্মসুচির অংশ হিসেবে আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠে বিভাগীয় গণসমাবেশের ডাক দিয়েছে বিএনপি। তবে পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় এখনও মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করতে পারেনি বিএনপি।

মাঠ সাজসজ্জা উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাইফুল ইসলাম মার্শাল বলেন, ‘গণসমাবেশের জন্য মাঠ বরাদ্দ চেয়ে আমরা আবেদন করেছি। কিন্তু লিখিত অনুমতি এখনও পাইনি। একদিন আগে অনুমতি পেলেও আমরা মাঠ তৈরি করে ফেলব।’
 
৩ ডিসেম্বর সমাবেশ অথচ মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) রাত পর্যন্ত তারা পুলিশের অনুমতি পায়নি বিএনপি। অবশ্য তাদের জন্য আশার কথা জেলা প্রশাসক রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছেন। ১ ডিসেম্বর থেকেই বিএনপি নেতাকর্মীরা এই মাঠে প্রস্তুতি শুরু করবে। বিএনপি নেতারা আশাবাদী পুলিশের অনুমতিও পাবেন তারা।

রাজশাহী জেলা প্রশাসক ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছে বিএনপি। এটি বড় আয়োজন হওয়ায় বিএনপি নেতা কর্মীরা আগেভাগেই মঞ্চ তৈরিসহ মাঠ প্রস্তুত করার চেষ্টা করছিল। কিন্তু এখনও পুলিশের অনুমতি না মেলায় মাঠের প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ নেই।

মঞ্চ বানাতে গিয়ে মঙ্গলবার বাধার মুখে পড়ে স্থানীয় নেতারা। এদিন একটি প্যান্ডেল তৈরির সময় পুলিশি বাধার মুখে তা ভেঙ্গে নিতে বাধ্য হন তারা। এরই মধ্যে ১ ডিসেম্বর থেকে রাজশাহী বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট ঘোষণা করা হয়েছে। এ কারণে নেতাকর্মীদের আগেভাগেই রাজশাহী আনার কথা ভাবছে বিএনপি নেতারা। নেতাকর্মীদের থাকার জন্য মাদ্রাসা ময়দানে সামনে একটি ফাঁকা জায়গায় সোমবার সকাল থেকে প্যান্ডেল তৈরির কাজ শুরু হয়। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে পুলিশ সেই প্যান্ডেল ভেঙে ফেলতে বাধ্য করেছে।

প্যান্ডেল বানানোর কাজটি করছিলেন ডেকোরেটর মালিক আব্দুস সালামের লোকজন। ওই সময় রাজপাড়া থানার পুলিশ সদস্যরা গিয়ে তাদের বাধা দেন এবং ভেঙ্গে ফেলতে বলেন। এ সময় শ্রমিকেরা বাঁশ-খুঁটি তুলে নেন। তবে, পুলিশের ভূমিকায় নমনীয় বিএনপি। তারা আশাবাদী এই মাঠেই তারা সমাবেশ করবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘পুলিশ প্যান্ডেল ভাঙেনি। পুলিশের সাথে আমাদের খুব ভালোভাবেই কথা হচ্ছে। কোনো অসুবিধা নেই। পুলিশ আমাদের মাদ্রাসা ময়দানেই সমাবেশ করার অনুমতি দেবে।’

রাজশাহী নগর পুলিশের বিশেষ শাখার উপকমিশনার মো. আবদুর রকিব বলেন, ‘যে স্কুলের মাঠে বিএনপি সমাবেশ করবে বলছে, সেই স্কুলে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা চলছে। বুধবার পরীক্ষা হবে, বৃহস্পতিবার সকালেও একটা পরীক্ষা আছে। তাই এখনও সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে বৃহস্পতিবার বিষয়টি চূড়ান্ত হয়ে যাবে।’

এদিকে রাজশাহী মাদ্রাসা মাঠের মালিক জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, মাদ্রাসা মাঠ ঐতিহাসিক মাঠ। তারা সেই মাঠই চান। তাদের অনুরোধের কারণে বিষয়টি বিবেচনা করা হয়েছে। ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত পরীক্ষা রয়েছে। পরের দিন ১ ডিসেম্বর থেকে তারা মাঠ ব্যবহার করতে পারবেন।

বিভি/এইচএস

মন্তব্য করুন: