• NEWS PORTAL

  • বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

দিনভর বইমেলার আবেদন বাড়িয়েছে একুশে ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত: ২২:৫২, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আপডেট: ২৩:১০, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ফন্ট সাইজ
দিনভর বইমেলার আবেদন বাড়িয়েছে একুশে ফেব্রুয়ারি

একুশে ফেব্রুয়ারির দিনে বই মেলা মানেই যেন বাড়তি আকর্ষণ, আর দর্শনার্থীর উপচেপড়া ভীড়। এর আগে, সকালে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে দলে দলে মেলা প্রাঙ্গনে ভিড় করে সর্বস্তরের মানুষ। বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল আটটা থেকেই মেলা খুলে দেয়া হলেও দুপুরের দিকে জমজমাট হয়ে ওঠে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। 

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করে অনেকেই চলে এসেছেন বই মেলায়। দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই সেই ভীড় বাড়তে থাকে কয়েকগুন। শাহবাগ থেকে টিএসসি হয়ে দোয়েল চত্বর পর্যন্ত পা ফেলাও কষ্ট। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান কিংবা বাংলা একাডেমির প্রবেশ পথে দীর্ঘ লাইনই বলে দেয় বই মেলা ঘিরে মানুষের বাড়তি আগ্রহ আর উদ্দীপনার কথা। 

একুশের শহীদদের স্মরণে সাদা-কালো শাড়িতে শিক্ষার্থী থেকে মধ্য বয়সী নারীর উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। অন্যান্য দিনের চেয়ে এই দিনটিতে প্রতিটি স্টলে বেচা-বিক্রিও ছিল বেশ। প্রিয় লেখকের সাথে সেল্ফি অথবা অটোগ্রাফ যুক্ত বই নিতে স্টলে স্টলে ছিল ভীড়। সব মিলিয়ে লেখক-পাঠকের প্রাণের এই বই মেলা পরিণত হয়েছে মহামিলন মেলায়। 

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও বাংলা একাডেমির বইমেলা শুরু থেকেই একে অপরের পরিপূরক। ৫২ সালের যে দিনটিকে হৃদয়ে ধারণ করেই গোড়াপত্তন হয়েছিলো অমর একুশে বইমেলার, সেই মহান দিবস। 

সকাল থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে ফুল দিয়ে জানানো পর্ব শেষে সর্বসাধারণে গন্তব্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের মেলা প্রাঙ্গন। পোশাকে একুশের রঙ ছাপিয়ে মুখ্য হয়ে ওঠে ভাষা শহীদদের আত্নত্যাগের স্বীকৃতি। 

দুপুরের দিকে ঢল নামে লেখক , পাঠক ও দর্শনার্থীদের। জমজমাট মেলায় বেচাকেনাও বাড়ে বেশ। তবে নিছক আড্ডাবাজি ও প্রিয় মানুষদের সাথে নিয়ে সময় কাটাতেও আসেন অনেকে। বাসন্তী সাজে সেলফি তুলে নিজেদের মত করে অনেকই উদযাপন করেন প্রাণোচ্ছল মুহুর্ত। 

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: