• NEWS PORTAL

  • শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

ফেসবুক থেকে

চরম পানির সংকটে পড়বে ভবিষ্যৎ পৃথিবী

চরম পানির সংকটে পড়বে ভবিষ্যৎ পৃথিবী

যতপ্রকার অপচয় দুনিয়াতে আছে তারমধ্যে আমাকে সবচেয়ে বেশি কষ্ট দেয় পানির অপচয়। কোথাও পানির ট্যাংকি উপচে পানি পড়ে অপচয় হচ্ছে এই দৃশ্য আমাকে ভীষণভাবে কষ্ট দেয়। যেকোন স্থানে পানির ট্যাপ দিয়ে ঝিরিঝিরি পানি পড়ছে দেখলে সেটা ঠিক না করা পর্যন্ত আমি শান্তি পাইনা। পৃথিবীর চারভাগের তিনভাগ পানি হলেও এই পানির সাতানব্বই ভাগই লবনাক্ত। আর যে পানি আমরা খাই বা ব্যবহার করি তা  হলো স্বাদুপানি যা পৃথিবীর মোট পানির মাত্র তিনভাগ। আর এই স্বাদুপানি আমরা মানুষেরা ইতোমধ্যে এত পরিমান অপচয় করে ফেলেছি যে ভবিষ্যৎ দুনিয়া যে ভয়ংকর পানির ক্রাইসিস ফেইস করবে তা মোটামুটি নিশ্চিত।

সিস্টেম মরে না মানুষ মরে!
সিস্টেম মরে না মানুষ মরে!

কয়েকদিন পরেই বেইলি রোডের অগ্নিকাণ্ডের ফাইল হিমঘরে চলে যাবে। তার আগে দুটো কথা বলে রাখিঃ এদেশে যে কোনো দুর্ঘটনা-বিপর্যয় পরবর্তী সরকারী সাফাই- আগুন লাগার পর বলা হবে-ভবনের অনুমোদন ছিল না। লঞ্চডুবির পর বলা হবে-ফিটনেস সার্টিফিকেট ছিল না, অতিরিক্ত যাত্রী ছিল। সড়ক দুর্ঘটনার পর বলা হবে-ফিটনেস ছিল না, চালকের লাইসেন্স ছিল না। গার্মেন্ট কারখানায় আগুন লাগার পর বলা হবে-ফায়ারস্কেপ সিঁড়ি ছিল না, মেইন গেটে তালা ছিল। ভুল চিকিৎসায় রুগী মরার পর বলা হবে-হাসপাতালটির অনুমোদন ছিল না......কিন্তু কখনওই বলা হবে না-এইসব দেখার জন্য জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পোষা রাষ্ট্রের কর্তারা টাকা খেয়ে এইসকল অবৈধ প্রতিষ্ঠানগুলোকে চলতে দিয়েছে, এবং শত শত মানুষের অপমৃত্যুর কারণ আসলে এরাই।

বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ ২০২৪, ১০:১৫

বাবরি মসজিদ থেকে রাম মন্দির : ইতিহাসের নতুন বাঁকে ভারত
বাবরি মসজিদ থেকে রাম মন্দির : ইতিহাসের নতুন বাঁকে ভারত

পানিপথের প্রথম যুদ্ধ। তারিখটা ১৫২৬ সালের ২১ এপ্রিল। জহিরউদ্দিন মোহাম্মদ বাবরের কাছে পরাজিত হলেন দিল্লির শাসক ইব্রাহিম লোদি। শুরু হলো ভারতে মুঘলদের রাজত্ব। এর ঠিক বছর দুয়েক পরে অযোধ্যায় নির্মিত হলো একটি মসজিদ। তৈরি করলেন বাবরের অন্যতম সেনাপতি মীর বাঁকি। আর এই সেই অযোধ্যা, যা রামায়নে ভগবান রামচন্দ্রের জন্মভূমি বলে পরিচিত। প্রায় চার শ বছর এভাবেই চলল। মসজিদে নামাজের পাশাপাশি পাশের চবুতরায় চলতো পূজাপাঠ, কীর্তন সবই। কোনো অসুবিধাই হয়নি। অযোধ্যায় মানুষে মানুষে কোনো বিভেদ তৈরি করেনি এ ঘটনা। তবে কবে যে এই মসজিদের নাম বাবরি মসজিদ হলো তা কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারে না। তবে প্রচলিত বিশ্বাসগুলোর মধ্যে জনপ্রিয় হলো, প্রতিষ্ঠাতা মীর বাঁকি তাঁর সম্রাটের নামেই এই মসজিদের নামকরণ করেছিলেন।

মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২৪, ১৪:৪৩