• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১৩ কার্তিক ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

অনলাইন পরীক্ষায় লুঙ্গি পরে অংশগ্রহণ: হাবিপ্রবি`র তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত: ১৮:০৯, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আপডেট: ১৮:৫৬, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

ফন্ট সাইজ
অনলাইন পরীক্ষায় লুঙ্গি পরে অংশগ্রহণ: হাবিপ্রবি`র তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

অনলাইন পরীক্ষায় লুঙ্গি পরে অংশগ্রহণের দায়ে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) এর তিন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করার অভিযোগ উঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের ফুড প্রসেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০তম ব্যাচের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে এই ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

এছাড়াও একই পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের অভিযোগে আরও দুই জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার এবং আরেক শিক্ষার্থীর নির্দিষ্ট সময়ের আগে খাতা জমা নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। লুঙ্গি পরার দায়ে পরীক্ষা থেকে বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের অভিযোগ অসদুপায় অবলম্বন না করলেও তাদেরকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

অন্যদিকে অনুষদের ডিন বলছেন, 'লুঙ্গি পরার অভিযোগে বহিষ্কার করার যে বিষয়টা সেটা মোটেও সত্য নয়, বরং পরীক্ষার হলে অসদুপায় এবং পরীক্ষার নিয়ম অনুসরণ না করার কারণে বহিষ্কার হয়েছে শিক্ষার্থীরা।'

জানা যায়, সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে শুরু হওয়া অনলাইন পরীক্ষার কয়েক মিনিটের মধ্যে ইমপ্রুভ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা ফাহাদ (ছদ্মনাম) নামে এক শিক্ষার্থীকে প্রথম বহিষ্কার করা হয়।

তার মিনিট দশেক পর বহিষ্কার করা হয় ২০তম ব্যাচের আরেক শিক্ষার্থী সামিউল ইসলামকে (ছদ্মনাম)।

সামিউল জানায়, 'আমি যেখানে বসে পরীক্ষা দিচ্ছিলাম তার পিছনে জানালা থাকায় পিছন থেকে আলো আসছিলো। আমার ফেস ক্যামেরায় সুন্দরভাবে দেখা যাচ্ছিলো না। তখন স্যার আমাকে জানালায় পর্দা দিতে বললে আমি উঠে দাঁড়ায়। জানালা বন্ধ করার সময় স্যার আমার লুঙ্গি দেখতে পান। তারপর ড্রেসকোডের কথা তুলে স্যার আমাকে জুম থেকে বের করে দেন। আমি পরে স্যারকে কল দিলে স্যার বলেন আমি বহিষ্কার।' 

সামিউল আরও জানায়, 'আমার আগে একজনকে (ফাহাদ) বহিষ্কার করা হয়েছিলো সেও লুঙ্গি পরা ছিলো। আমিও যেহেতু লুঙ্গি পরা ছিলাম তখন ঐ শিক্ষার্থীর সংগে যেন বেইনসাফি না হয় বলে আমাকেও বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানান স্যার। 

এদিকে ঐ পরীক্ষায় অংশ নেওয়া আরও তিনজন শিক্ষার্থী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

 

বিভি/এএএম/রিসি 

মন্তব্য করুন: