• NEWS PORTAL

  • শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও রমজান উপলক্ষ্যে মালদ্বীপে বাংলাদেশি মিয়াঞ্জ গ্রুপের নৈশভোজ

ওমর ফারুক খোন্দকার অনিক, মালদ্বীপ

প্রকাশিত: ১৪:০৮, ১৮ মার্চ ২০২৩

আপডেট: ১৪:১০, ১৮ মার্চ ২০২৩

ফন্ট সাইজ
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও রমজান উপলক্ষ্যে মালদ্বীপে বাংলাদেশি মিয়াঞ্জ গ্রুপের নৈশভোজ

আসন্ন পবিত্র মাহে রমজান ও বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ঘিরে মালদ্বীপে স্থানীয় ও প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের নিয়ে মাহেফুন বা রমজান পূর্ব প্রস্তুতি স্বরুপ  নৈশ্যভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান মিয়াঞ্জ গ্রুপের উদ্যোগে শুক্রবার (১৭ই মার্চ) রাত নয়টায় এমআই কলজের অডিটোরিয়াম সেন্টারে এই আয়োজন সম্পন্ন হয়।

প্রবাস জীবনের সব ব্যস্ততাকে ছুড়ে ফেলে আনন্দ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে মালদ্বীপে সম্পূর্ণ বাংলাদেশি খাবারের আয়োজনে এই নৈশভোজে অংশগ্রহণ করেন প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ী মো. শাহ আলাম, মো. রুহুল আমিন, জাকির হোসেন, মো. মোতালেব মোল্লা, তারেক হাসান তাহসিন, বাবুল হোসেন, মজনু মিয়া, মাসুম বিল্লাহসহ মিয়াঞ্জ গ্রুপের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারী। প্রবাসীদের এমন উপস্থিতিতে মনে হচ্ছিল যেন মালদ্বীপের বুকে ছোট্ট এক খন্ড বাংলাদেশ। নৈশভোজের ফাঁকে কোম্পানির চেয়ারম্যান আহমেদ মোত্তাকি প্রতিটি টেবিল ঘুরে সকলের সাথে কুশলাদি বিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানে মিয়াঞ্জ গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ মোত্তাকি বলেন, আজ মহান এক নেতার জন্মদিন। যার হাত ধরে বাংলার ভূখণ্ডে রচিত হয়েছে বিস্ময়কর এক ইতিহাস। হাজার বছরের পরাধীনতার নাগপাশ ছিন্ন করে বিশ্বের মানচিত্রে স্থান করে নিয়েছে নতুন এক রাষ্ট্র। বাঙালি পেয়েছে জাতিসত্তার পরিচয় ও অধিকার। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। 

এছাড়াও তিনি তার কোম্পানির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি বলেন আমরা মালদ্বীপে দীর্ঘদিন যাবত সফলতার সাথে ব্যবসা করে আসছি। আমাদের মিয়াঞ্জ গ্রুপের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত গ্রাহক বা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের কোনো অভিযোগ পাইনি। আমাদের গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী আমরা পণ্য সরবরাহ করে যাচ্ছি, যা প্রশংসার দাবিদার রাখে। মালদ্বীপের আইন মেনে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে মিয়াঞ্জ গ্রুপ তা ভবিষ্যতেও গ্রাহক সেবায় অব্যাহত থাকবে বলেও প্রত্যাশা করেন তিনি। 

এছাড়াও তিনি বলেন আমরা ACI, Square, Fresh, Akiz, Radhuni ও Bangal Meet- এর মত বাংলাদেশের প্রথম সারি কোম্পানিগুলোর পণ্য আমদানি করে থাকি। অতঃপর, আমাদের আমন্ত্রণে আজকের অনুষ্ঠানে যারা উপস্থিত হয়েছেন সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও মোবারক-বাঁধ জানিয়ে নৈশভোজ অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হয়।

নৈশভোজে অংশগ্রহণ করা প্রবাসীরা বলেন, পরিবার-পরিজন ছাড়া প্রবাসে এসব উৎসব কেবলই আনুষ্ঠানিকতা। তাই বেদনা ভরা মন প্রতিনিয়তই কিছু না কিছুতে আক্ষেপ ঘোচানোর চেষ্টা করে। এরকম মিলনমেলা ও আনন্দ আয়োজনগুলো প্রবাসীদের কিছুটা আনন্দের উপলক্ষ করে দেয়।

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: