• বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

হালনাগাদের সময় অনলাইনেও চলবে নতুন ভোটারের আবেদন

প্রকাশিত: ১৮:৫৩, ১৪ মে ২০২২

ফন্ট সাইজ
হালনাগাদের সময় অনলাইনেও চলবে নতুন ভোটারের আবেদন

দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে নাগরিকরা নতুন ভোটার হওয়ার আবেদন, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংশোধনের আবেদন, হারানো এনআইডি উত্তোলনের আবেদন অনলাইনেই করতে পারেন। ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময়ও নতুন ভোটার হওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করা যাবে। নির্বাচনের কমিশনের (ইসি) নির্বাচনি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের (ইটিআই) মহাপরিচালক মো. আবদুল বাতেন এই তথ্য জানান। 

তিনি জানান, ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় বাড়ি বাড়ি গিয়ে নতুন ভোটার ও যারা মারা গেছেন তাদের নাম ভোটার তালিকা থেকে কর্তনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করা হবে। আর জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংশোধন ও স্থানান্তরের আবেদন সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে গিয়ে করতে হবে। 

যারা অনলাইনে নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করবেন তারা অনলাইন কপি প্রিন্ট করে অন্যান্য ডকুমেন্টসসহ সংশ্লিষ্ট নিবন্ধন কেন্দ্রে গিয়ে বাকি নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন বলেও জানান তিনি। 

ইসি সূত্র জানায়, সম্প্রতি ভোটার তালিকা হালনাগাদ তদারকি কমিটির এক বৈঠকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের সময় প্রথম দিকে অনলাইনে আবেদন বন্ধ রাখার বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছিল। 

২০ মে থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রথম পর্যায়ে ১৪০টি উপজেলায় তথ্য সংগ্রহ করা হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে অন্যান্যগুলোতে এই কাজ সম্পন্ন করা হবে।

এই বছর ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার পূর্বে জন্মগ্রহণ করা নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে।  তথ্য সংগ্রহ করা ১৮ বছরের কম বয়সীরা পরবর্তীতে বয়স বয়স পূর্ণ হওয়ার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকায় যুক্ত হয়ে যাবেন। 

২০০৭-২০০৮ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকা কার্যক্রম হাতে নেয় ইসি। সেই সময় ৯ কোটি ভোটারের ডাটাবেজ তৈরি করা হয়। ইসির সর্বশেষ দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে ১১ কোটি ৩২ লাখ ৮৭ হাজার ১০ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে ৫ কোটি ৭৬ লাখ ৮৯ হাজার ৫২৯ জন পুরুষ, ৫ কোটি ৫৫ লাখ ৯৭ হাজার ২৭ জন নারী ভোটার এবং ৪৫৪ জন হিজড়া ভোটার রয়েছে।

প্রথম থেকে এনআইডি হারানো ও সংশোধন সংক্রান্ত সেবা বিনামূল্যে দিলেও ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ফি নেওয়া শুরু করে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

বিভি/এইচকে

মন্তব্য করুন: