• NEWS PORTAL

  • মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২ | ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

বাসে ধর্ষণের শিকার মায়ের ইজ্জত ফিরিয়ে দিতে পারবে- প্রশ্ন জামায়াত আমীরের

প্রকাশিত: ০৮:২৭, ৫ আগস্ট ২০২২

আপডেট: ০৮:৩৪, ৫ আগস্ট ২০২২

ফন্ট সাইজ
বাসে ধর্ষণের শিকার মায়ের ইজ্জত ফিরিয়ে দিতে পারবে- প্রশ্ন জামায়াত আমীরের

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থেকে ছেড়ে আসা ঈগল এক্সপ্রেসের একটি নৈশকোচে ডাকাতি ও এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর দায়িত্ব ও ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে জামায়াতে ইসলামী। 

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বিকেলে এক বিবৃতিতে এই প্রশ্ন তোলেন দলটির আমীর ডা. শফিকুর রহমান। তিনি বলেন, বাসটি বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে তিন ঘণ্টার মতো নিয়ন্ত্রণে রাখে ডাকাত দল। পরে পথ পরিবর্তন করে টাঙ্গাইল–ময়মনসিংহ সড়কের মধুপুর উপজেলার রক্তিপাড়া এলাকায় রাস্তার বাসটি কাত করে রেখে পালিয়ে যায় ডাকাতরা। এই সময়ের মধ্যে হাইওয়ে পুলিশ এবং পুলিশের এতো নজরদারি কোথায় ছিলো? 

তিনি বলেন, এই ঘটনায় থেকেই বুঝা যায়, দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কতটা অবনতি হয়েছে এবং যাত্রীদের নিরাপত্তা যে কতটা ভয়ঙ্কর ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। রাজনৈতিক দল দমনের কাজে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিয়োজিত রাখার কুফল জাতি হাড়ে-হাড়ে ভোগ করছে। কোথাও দু’চারজন বসে সামাজিক অনুষ্ঠান বা রাজনৈতিক কথাবার্তা বললে, সেখানে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী চলে যায়। রাষ্ট্রবিরোধী পরিকল্পনা চলছে- এমন মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে নিরাপরাধ মানুষদের আটক করছে দিনের পর দিন। অথচ এতো বড় ঘটনা ঘটে গেলো, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা নির্বিকার। 

জামায়াত আমীর বলেন, ধর্ষণের শিকার যে মায়ের সর্বনাশ হয়ে গেলো, তাঁর ইজ্জত তো আর কেউ ফিরিয়ে দিতে পারবে না। অন্তত ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ভয়ঙ্কর অপকর্মের পুনরাবৃত্তি না ঘটে, তার জন্য এর উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া দরকার। 

মন্তব্য করুন: