• NEWS PORTAL

  • শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

Inhouse Drama Promotion
Inhouse Drama Promotion

জলাবদ্ধতার সমাধানে হট লাইন চালু করলো ডিএনসিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:০৫, ১১ মে ২০২৪

আপডেট: ১৯:১২, ১১ মে ২০২৪

ফন্ট সাইজ
জলাবদ্ধতার সমাধানে হট লাইন চালু করলো ডিএনসিসি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) আওতাধীন এলাকার নাগরিকরা বৃষ্টির সময় জলাবদ্ধতার শিকার হলে সংস্থার হটলাইন নাম্বারে কল দিতে পরামর্শ দিলেন মেয়র মো.আতিকুল ইসলাম। এজন্য সংস্থার ১০টি অঞ্চলে ১০টি 'কুইক রেসপন্স টিম' গঠন করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার (১১ মে) রাজধানীর গুলশান-২ এ নগর ভবনের সামনে ডিএনসিসির বিভিন্ন এলাকার খাল থেকে উদ্ধার করা বর্জ্য প্রদর্শনী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

দ্রুত সময়ে জলজট দূর করতে এই কুইক রেসপন্স টিম কাজ করছে। কোথাও পানি জমে থাকলে নগরবাসীকে ১৬১০৬ হট লাইনে যোগাযোগ করার কথা জানান মেয়র আতিকুল ইসলাম।

মেয়র বলেন ডিএনসিসি’র হট লাইনে অভিযোগ করার পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কুইক রেসপন্স টিম পৌঁছে যাবে এবং কাজ শুরু করবে।

খালে বর্জ্য ফেলা নিয়ে মেয়র বলেন, আগে বৃষ্টি হলে শহরে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হতো। সেটা অনেকাংশে সমাধান হয়েছে। এখন অল্প এলাকায় জলাবদ্ধতা হয়। এটা ড্রেনে ময়লা জমার কারণে হয়। এখন থেকে খাল ও ড্রেনে বর্জ্য ফেললে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, আমরা দেখছি অনেকে অসচেতনভাবে গৃহস্থালির বর্জ্য খাল, ডোবা, নালা, ড্রেনে ফেলে দেই। সারফেস ড্রেনে ও খালে এমন কোনো ময়লা নেই পাওয়া যায় না। আমরা অবাক হয়ে যাই প্রতিনিয়ত নানা ধরনের ময়লা নির্বিচারে সবাই ফেলে দিচ্ছে খালে ও ড্রেনে। ডিএনসিসি এলাকার বিভিন্ন খাল থেকে উদ্ধার করা পরিত্যক্ত পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে পরিত্যক্ত লেপ, তোশক, সোফা, লাগেজ, খাট, ক্যাবল, টায়ার, কমোড, ফুলের টব, রিকশার অংশবিশেষ, টেবিল, চেয়ার, বেসিন, ব্যাগ, প্লাস্টিকের বিভিন্ন পাত্রসহ নানা পরিত্যক্ত পণ্য। এগুলোর কারণেই মূলত পানি প্রবাহ নষ্ট হচ্ছে, সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতার।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মীর খায়রুল আলম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইমরুল কায়েস চৌধুরী, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ ফিদা হাসান প্রমুখ।

 

বিভি/এসএইচ/রিসি 

মন্তব্য করুন: