• NEWS PORTAL

  • বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, মামলা করায় প্রাণ নাশের হুমকি কাউন্সিলরের

বরিশাল প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৮:৫১, ১৭ মে ২০২২

আপডেট: ১৮:৫৮, ১৭ মে ২০২২

ফন্ট সাইজ
বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, মামলা করায় প্রাণ নাশের হুমকি কাউন্সিলরের

বরিশাল সিটি করপোরেশনের ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কেফায়েত হোসেন রনির বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করায় প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ করেছেন এক তরুণী। তিনি নগরীর ১৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে হত্যার হুমকি পাওয়ার পর তিনি কোতয়ালি থানায় অভিযোগ করতে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। 

তরুণী অভিযোগ করেন, সকাল থেকে কাউন্সিলর রনির লোকজন তার বাসায় গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তাকে। পরে তিনি তাঁর মায়ের সঙ্গে রিকশায় বের হলে সেখানেও রনির লোকজন পিছু নেয় এবং প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। তাই নিরুপায় হয়ে কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দিতে যাচ্ছেন। পরে পুলিশের পরামর্শে ফেইসবুকে বাজে মন্তব্যের জন্য সাইবার ট্রাইব্যুনাল ও হুমকি দেয়ার অভিযোগে কাউনিয়া থানায় মামলা করবেন জানিয়ে কোতয়ালি থানা ত্যাগ করেন তরুণী। 

এর আগে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে সোমবার (১৬ মে) দুপুরে বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছেন ওই তরুণী। বিচারক ইয়ারব হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে ১৬ জুনের মধ্যে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, ৪/৫ মাস পূর্বে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কেফায়েত হোসেন রনির সঙ্গে পরিচয়ের পর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বাদিনীর। একপর্যায়ে রনি বিয়ের প্রস্তাব দিলে তার সাথে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হয়ে ওঠে। বিভিন্ন সময় বরিশালের একাধিক রেস্টুরেন্টে তারা দেখা করেন ও প্রায় রনির বাসায় যাওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয় বাদিকে। প্রথমে ৭ মে জরুরী কথা আছে বলে বাদিনীকে বাসায় ডেকে নেয় রনি। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে রনি বিকাল ৪টা থেকে বাদিনীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ৮ মে পুনরায় ডেকে নিয়ে রাত ৮টায় ধর্ষণ করে। ১২ মে বাদিনী বিয়ের জন্য চাপ দিলে বাদিনীকে মারধর করে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় এবং মোবাইল ফোন নিয়ে বাদিনী ও রনির সঙ্গে সম্পর্ক জড়িত সকল প্রমাণ ডিলেট করে ফেলে রনি। 

তবে তরুণী মামলা দায়েরের আগে ১২ মে কাউনিয়া থানায় কাউন্সিলর রনির পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। 

এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হলে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কেফায়েত হোসেন রনি বলেন, ‘একটি কুচক্রী মহল সমাজে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এই ঘটনা ঘটাচ্ছে। সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমার প্রতিপক্ষরা এই মিথ্যা মামলা দিয়ে নাটকটি সাজিয়েছে। রনি আরও বলেন, আমার বাসার চারদিকে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো আছে। প্রশাসন চাইলে সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই-বাছাই করে দেখতে পারে, যে আমার বাসায় কবে কে আসছে আর গেছে। 

এবিষয়ে কাউনিয়া থানার ওসি এ আর মুকুল বলেন, কাউন্সিলর রনি তাকে ম্যাসেজ দেয়াসহ নানাভাবে বিরক্ত ও হয়রানি করছে মর্মে এক তরুণীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি তদন্তের অনুমতি চেয়ে আমরা আদালতে পাঠিয়েছি।
 

বিভি/এইচএস

মন্তব্য করুন: