• NEWS PORTAL

  • বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

সৌদি আরবে গৃহকর্মী হিসেবে যেতে বীমা করতে হবে

প্রকাশিত: ২০:৪০, ১৭ আগস্ট ২০২২

ফন্ট সাইজ
সৌদি আরবে গৃহকর্মী হিসেবে যেতে বীমা করতে হবে

এখন থেকে সৌদি আরবে গৃহকর্মী হিসেবে যাওয়া, ওখানে থাকা গৃহকর্মীদের ও তাদের নিয়োগ দাতাদের মধ্যকার চুক্তিতে ইনস্যুরেন্স বা বীমার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। সৌদি আরবের মিনিস্ট্রি অফ হিউম্যান রিসোর্সেস অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট নতুন এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। খুব শিগগিরই সরকারের তরফ থেকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হবে বেল জানানো হয়েছে। খবর: বিবিসি।

বিবিসি জানায়, সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন আল আকবারিয়াতে প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানে এ তথ্য দেওয়া হয়েছে।

জেদ্দায় বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মো. নাজমুল হক বিবিসি বাংলাকে বলেছেন ইনস্যুরেন্সের বিষয়টি খুব ভালো একটি সিদ্ধান্ত। যা বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া চলছে। এর বাস্তবায়ন হলে নিয়োগকর্তা ও গৃহকর্মী- দু পক্ষই সুরক্ষা পাবে।

বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সৌদি আরবে প্রায় তিন লাখের মতো গৃহকর্মী এখন কাজ করছে।

কিন্তু এখন এ ধরণের গৃহকর্মীদের জন্য বিশেষ কোনো সুরক্ষার ব্যবস্থা নেই। অর্থাৎ কেউ যদি সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করার সময় অসুস্থ হয় বা মারা যায় তার জন্য নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো অর্থ পাওয়া যায় না। অনেক ক্ষেত্রে বাংলাদেশে আসার পর এখানকার কল্যাণ তহবিল থেকে মারা যাওয়া বা অসুস্থ ব্যক্তি ও তাদের পরিবারকে সহায়তা করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে গৃহকর্মী নেওয়ার জন্য চুক্তি হয়েছিল। এর মাধ্যমে সাত বছর বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে জনশক্তি রফতানি শুরু হয়েছিল।

সৌদি সরকার তখন দুই লাখের বেশি নারীকর্মীর চাহিদা জানিয়েছিল। বিপরীতে বাংলাদেশ প্রতি মাসে দশ হাজার নারী গৃহকর্মী হিসেবে কাজের জন্য পাঠানোর কথা বলেছিল।

এখন সব মিলিয়ে তিন লাখের মতো বাংলাদেশী গৃহকর্মী সেদেশে কাজ করছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছে।

বিভি/এনএ

মন্তব্য করুন: