• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ১৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

মুহূর্তেই শরীরে এনার্জি বাড়িয়ে দিবে যেসব খাবার

প্রকাশিত: ১৭:০৯, ১৪ নভেম্বর ২০২১

ফন্ট সাইজ
মুহূর্তেই শরীরে এনার্জি বাড়িয়ে দিবে যেসব খাবার

মাঝে মধ্যে অনেককেই বলতে শোনা যায়-ভালো লাগছে না, কাজে মন বসছে না, শরীর ম্যাজ ম্যাজ লাগছে, অসার লাগে, ক্লান্তি বোধ হয়, বেশি বেশি ঘুম পায়, ঘুম থেকে উঠতে কষ্ট হয়, কাজে গতি আসে না ইত্যাদি। এগুলো শরীর দুর্বলতার লক্ষণ। বড় কোনো রোগের উপসর্গও হতে পারে এই দুর্বলতা। তবে প্রতিদিনের কাজের মাঝে হারিয়ে যাওয়া এনার্জি ফিরে পাওয়ার জন্য খাদ্য তালিকায় যোগ করতে হবে কয়েকটি খাবার।

পুষ্টিবিদদের মতে কিছু কিছু খাবার শরীরে তাৎক্ষণিক শক্তি জোগাতে সক্ষম। লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়েরএনার্জি প্রতিবেদনে এমন সাতটি খাবারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এই খাবারগুলো শরীরে এনার্জি সরবরাহ করে শরীরকে চাঙ্গা করে তুলতে অত্যন্ত সহায়ক। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কোন কোন খাবার এনার্জি বাড়াতে সহায়তা করে।

১. কলা 
এনার্জি বাড়াতে কলার জুড়ি নেই। এটি পটাসিয়াম, ফাইবার, ভিটামিন বি-৬ সমৃদ্ধ, যা শরীরে শক্তি জোগাতে সহায়তা করে। তাছাড়া ফাইবারসমৃদ্ধ কলা, অন্ত্রের স্বাস্থ্য উন্নত করতে এবং মেটাবলিজম ত্বরান্বিত করতেও অত্যন্ত সহায়ক। তাই খুব বেশি ওজন কমে গেলে বা শরীর দুর্বল হয়ে পড়লে চিকিৎসকরা কলা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

২. দই
সুস্থ থাকতে এবং শরীরকে এনার্জিতে পরিপূর্ণ রাখতে রোজ পাতে রাখুন দই। দই শরীরকে শীতল রাখার পাশাপাশি, শক্তি জোগায়। দই ম্যাগনেসিয়ামে পরিপূর্ণ। এটি একটি খনিজ যা শরীরে এনার্জি প্রদান করে। এছাড়াও, দই হজম ক্ষমতা এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করে। বদহজম এবং পেট ফোলা কমায়।

৩. ডাবের পানি 
ডাবের পানি হলো প্রাকৃতিক স্যালাইন। এতে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম, সোডিয়াম রয়েছে। তাই শরীরে এসব খনিজের অভাব ঠেকাতে পারে ডাবের পানি। শরীরচর্চা বা পরিশ্রমের কাজ করার পর এক গ্লাস ডাবের পানি শরীরের শক্তি পুনরুদ্ধারে সাহায্য করে। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

৪. বাদাম
দিনভর পরিশ্রমের পর শক্তির জোগান দেয় বাদাম। বাদাম স্বাস্থ্যকর পুষ্টিগুণে ভরপুর, যা শরীরকে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ এই বাদামে রয়েছে- ফাইবার, প্রোটিন, ভিটামিন-ই ও ম্যাগনেশিয়ামের মতো উপাদান। উচ্চ পরিমাণে ওমেগা-৩ এবং ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শক্তির মাত্রা বাড়ায়। আমন্ডে উপস্থিত ম্যাঙ্গানিজ এবং ভিটামিন-বি ক্লান্তি দূর করতেও সাহায্য করে।

৫. চকলেট 
পুষ্টিবিদদের মতে, এনার্জি বাড়াতে চকলেটের ভূমিকা অসাধারণ। চকলেটে থাকা চিনি এবং ক্যাফেইন উভয়ই কর্টিসল এবং অ্যাড্রেনালিনের মাত্রা বৃদ্ধি করার পাশাপাশি, এটি শক্তি বর্ধক হিসেবেও কাজ করে। চকলেটে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য বর্তমান। এটি উচ্চ রক্তচাপ, কোলেস্টেরল এবং প্রদাহের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করতে পারে। এক টুকরা চকলেট মনও ভালো করে দেয়।

৬. ডিম 
প্রোটিন সমৃদ্ধ ডিম এনার্জির দুর্দান্ত উৎস। ডিমে লিউসিন নামক অ্যামিনো অ্যাসিড বর্তমান, যা শরীরের শক্তি উৎপাদনকে উদ্দীপিত করতে সহায়তা করে। প্রতিদিন একটি করে ডিম খেলে শরীরের রক্তচাপের মাত্রার স্বাভাবিক থাকে। ডিমের মধ্যে থাকা লুসিন অ্যামিনো অ্যাসিড রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

৭. কফি 
আয়ুর্বেদ কফিকে ওষুধ হিসেবে দেখে। কফিতে থাকা ক্যাফেনাইন এনার্জি বর্ধক। এই উপাদান শারীরিক ও মানসিক এনার্জি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তাৎক্ষণিক শক্তি বর্ধক হিসেবে কফি দুর্দান্ত কার্যকর। কফি কেবল তার স্বাদের জন্যই নয়, এটি শক্তি বৃদ্ধির জন্যও জনপ্রিয়। 

বিভি/এএন

মন্তব্য করুন: