• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১৩ কার্তিক ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

চলতি সংসদে ২০ আসনে উপ-নির্বাচন করেছে ইসি, বাকি আছে দু`টি

প্রকাশিত: ২১:০০, ১ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ০৯:০৩, ২ অক্টোবর ২০২১

ফন্ট সাইজ
চলতি সংসদে ২০ আসনে উপ-নির্বাচন করেছে ইসি, বাকি আছে দু`টি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর। এরপর সংসদ সদস্যের মৃত্যু, শপথ না নেওয়া, আসন ছেড়ে দেওয়াসহ নানান কারণে খালি হওয়ায় চলতি সংসদের ২০টি আসনে ইতিমধ্যে উপনির্বাচন সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এছাড়া ইসিকে আরও দুইটি আসনে উপনির্বাচন করতে হবে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, উপনির্বাচন সম্পন্ন হওয়া ২০টি আসনের মধ্যে একটি সংরক্ষিত মহিলা আসন রয়েছে। এছাড়া যে দুইটি শূন্য আসনে উপ-নির্বাচন এখনও সম্পন্ন হয়নি, তারমধ্যেও একটি সংরক্ষিত মহিলা আসন রয়েছে। এরমধ্যে সিরাজগঞ্জ-৬ শূন্য আসনে আগামী ২ নভেম্বর উপনির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে কমিশন। আর সংরক্ষিত মহিলা আসন-৪৫ শূন্য আসনে নির্বাচনের তারিখ যেকোনো সময় ঘোষণা করবে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

এখন পর্যন্ত যে ২০ শূন্য আসনে উপনির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে, সেগুলো হলো-

কিশোরগঞ্জ-১

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়েও শপথ নেওয়ার আগেই ২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করলে আসনটি শূন্য হয়।

পরবর্তীতে এই আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন তাঁর বোন সৈয়দা জাকিয়া নুর।

বগুড়া-৬

একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচনে বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই আসন থেকে জয়লাভ করলেও পরে শপথ না নেওয়ায় আসনটি শূন্য হয়। পরে ২০১৯ সালের ২৪ জুন অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আসনটি থেকে বিএনপি'র গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ নির্বাচিত হন।

রংপুর-৩ 

জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদ ২০১৯ সালের ১৪ জুলাই মারা যাওয়ায় আসনটি শূন্য হয়।
পরবর্তীতে একই বছর ৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আসনটিতে জয় লাভ করেন এরশাদপুত্র রাহগির আলমাহি সাদ এরশাদ।

চট্টগ্রাম-৮

বাংলাদেশ জাসদের নেতা মইনউদ্দিন খান বাদল ২০২০ সালের ৭ নভেম্বর মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরে একই বছরের ১৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে এই আসন থেকে জয় লাভ করেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোছলেম উদ্দিন আহমদ।

গাইবান্ধা-৩

২০১৯ সালের ২৭ ডিসেম্বর  আ’লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ডা. ইউনুস আলী সরকার মারা যাওয়ায় আসনটি শূন্য হয়। পরে ২০২০ সালের ২১ মার্চ উপ-নির্বাচন আওয়ামী লীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি জয় লাভ করেন। 

ঢাকা- ১০

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ ফজলে নূর তাপস এই আসন থেকে নির্বাচিত হন। পদত্যাগ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে নির্বাচন করেন। ফলে ২০২০ সালের ২১ মার্চ এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে আওয়ামী লীগের শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন জয় লাভ করেন।

বাগেরহাট-৪

২০২০ সালের ১০ জানুয়ারি ডা. মোজাম্মেল হোসেনের মৃত্যু হলে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে একই বছরের ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আমিরুল আলম মিলন জয় লাভ করেন।

বগুড়া-১

২০২০ সালের ১৮ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। একই বছরের ১৪ জুলাই অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাহাদারা মান্নান বিজয়ী হন।

যশোর-৬

সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ইসমাত আরা সাদেকের মৃত্যুতে ২০২০ সালের ২১ জানুয়ারি আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে এক বছরের ১৪ জুলাই উপনির্বাচনে নির্বাচিত হন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার।

পাবনা-৪

২০২০ সালের ২ এপ্রিল সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। পরে একই বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে নুরুজ্জামান বিশ্বাস নৌকা প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করেন।

ঢাকা-৫

২০২০ সালের ৬ মে হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে একই বছরের অক্টোবরে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের কাজী মনিরুল ইসলাম মনু জয় লাভ করেন।

নওগাঁ-৬

২০২০ সালের ২৭ জুলাই আওয়ামী লীগ নেতা সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে একই বছরের ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেন হেলাল বিজয়ী হন।

সিরাজগঞ্জ-১ 

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ২০২০ সালের ১৩ জুন মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে একই বছরের ১২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে তাঁর ছেলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তানভীর শাকিল জয়লাভ করেন।

লক্ষ্মীপুর-২

কুয়েতের আদালতে দণ্ডিত হলে শহিদ ইসলাম পাপুলের এই আসনটি চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। পরবর্তীতে গত ২১ জুন অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুরউদ্দিন চৌধুরী জয়লাভ করেন।

ঢাকা-১৪

গত ৪ এপ্রিল ঢাকা-১৪ আসনের সংসদ সদস্য আসলামুল হক মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে আসনটি থেকে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আগা খান মিন্টু। চলতি বছরের ২৮ জুলাই এই আসনে ভোটগ্রহণের দিন ধার্য করেছিলো কমিশন।

কুমিল্লা-৫

আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু গত ১৪ এপ্রিল মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরে উপনির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. আবুল হাসেম খান। চলতি বছরের ২৮ জুলাই এই আসনে ভোটের দিন ধার্য করেছিল কমিশন।

সিলেট-৩

আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী গত ১১ মার্চ মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরে গত ৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বিজয়ী হন।

কুমিল্লা-৭

গত ৩০ জুলাই সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফের মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে উপনির্বাচনে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত। এই শূন্য আসনে আগামী ৭ অক্টোবর উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিন ধার্য ছিলো।

সংরক্ষিত মহিলা আসন-৩৩৪ 

২০১৯ সালের ৯ জুলাই আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য রুশেমা বেগম (মহিলা আসন-৩৪) মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। পরবর্তীতে আসনটি থেকে বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় লাভ করেন আওয়ামী লীগের সালমা চৌধুরী। 

যে দুই আসনে ইসিকে  উপনির্বাচন করতে হবে:-

সিরাজগঞ্জ-৬

সংসদ সদস্য মো. হাসিবুর রহমান স্বপন গত ২ সেপ্টেম্বর মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। এর প্রেক্ষিতে আসটিতে উপনির্বাচনের জন্য গত বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১০ অক্টোবর, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ১১ অক্টোবর, আপিল ১২-১৪ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১৭ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ১৮ অক্টোবর এবং ভোটগ্রহণ করা হবে আগামী ২ নভেম্বর।

সংরক্ষিত মহিলা আসন-৩৪৫

গত ১৩ সেপ্টেম্বর জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য মাসুদা এম রশিদ চৌধুরী (মহিলা আসন-৪৫) মারা গেলে আসনটি শূন্য হয়। আগামী সপ্তাহে এই আসনের তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

বিভি/এইচকে/এমএস

মন্তব্য করুন: