• NEWS PORTAL

  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪

প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

প্রকাশিত: ১২:৫৪, ৯ মার্চ ২০২৪

ফন্ট সাইজ
প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদ-এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও প্রাণের কাব্য সম্মেলন-২০২৪ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি শুক্রবার (৮ মার্চ) বিকাল ২টা ৩০ মিনিটে শুরু হয়ে রাত ৯ টায় শেষ হয়।

১ম পর্বে সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা কবি ও সংগঠক মোহাম্মদ আলমগীর জুয়েল-এর সভাপতিত্বে চমৎকার পরিবেশে মনোমুগ্ধকর আবহে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন রাজনীতিক ও সাহিত্যানুরাগী ফাতিমা তাসনিম।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক দেশজগত পত্রিকার সম্পাদক বহুগ্রন্থ প্রণেতা কবি ও গবেষক মাহমুদুল হাসান নিজামী। প্রধান আলোচক ছিলেন প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক ও শিক্ষাবিদ ড. মোহাম্মদ আবু তাহের। বিশেষ আলোচক ছিলেন কবি, কথা সাহিত্যিক ও সংগঠক জহিরুল হক বিদ্যুৎ, সাংবাদিক ও সমাজসেবক মুহাম্মদ নুরনবী খান প্রমুখ।

২য় পর্বে কবি ও সংগঠক গুল আফরোজ আহমেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন কবি ও সংগঠক ডাঃ আব্দুল হাকিম।

এ পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জারি অনুষদের ডিন প্রখ্যাত নিউরোসার্জন অধ্যাপক ডাঃ মোহাম্মদ হোসেন। প্রধান আলোচক ছিলেন শিক্ষা, সংস্কৃতি, গবেষণা ও মানবকল্যাণধর্মী প্রতিষ্ঠান ‘সফেন’ ফাউন্ডেশন-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক, বহুমুখী শিল্পস্রষ্টা, কবি ড. খান আসাদুজ্জামান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি ও ছড়াকার আসলাম সানী ও লেখক, সংগীতজ্ঞ ও গবেষক প্রাকৃতজ শামীমরুমি টিটন। বিশেষ আলোচক ছিলেন কবি ও সংগঠক মোঃ আমিনুল ইসলাম, কবি সংগঠক মুহাম্মদ আমীর হোসেন, কবি ও গীতিকার মোঃ জহিরুল ইসলাম প্রমুখ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কবি ও গীতিকার তাসলিমা বেগম, কবি ও সংগঠক মুহাম্মদ আবু তাহের, আইনবিদ ও মানবাধিকারকর্মী ড. আলহাজ্ব শরিফ সাকী, কবি ও সংগঠক মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সাংবাদিক ও সাহিত্যানুরাগী মোঃ আমিনুল ইসলাম,
কবি শাহনাজ পারভীন ও মরিয়ম শ্রাবনীসহ আরো অনেকেই।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ তাদের বক্তৃতায় সাহিত্যের নানাদিক আলোচনার পাশাপাশি প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদের ভূয়সি প্রশংসা করে বলেন, প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদ-এর কবি সাহিত্যিকদের সহযোগীপরায়ণ একটি সংগঠন হিসেবে নবীন-প্রবীণ কবিদের প্রতিভা বিকশিত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এমন আয়োজন সংগঠনের বিস্তারে ভূমিকা রাখবে এবং সাহিত্যসেবীদের নতুন সৃষ্টির ক্ষেত্রে উৎসাহিত করবে। এমন আন্তরিক আয়োজনের জন্য সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি কবি মোঃ বেল্লাল হাওলাদারসহ সংগঠনের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে কবি সাহিত্যিকদের আত্মার মেলবন্ধন সৃষ্টির রূপরেখা হিসেবে এগিয়ে চলুক, ৪র্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এই প্রত্যাশা করে সংগঠন ও সংগঠকদের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেন।

দুই পর্বের অনুষ্ঠানে সঞ্চালনায় ছিলেন কবি ও বাচিকশিল্পী জাহানারা রেখা এবং তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা-সভাপতি কবি ও সাংবাদিক মোঃ বেল্লাল হাওলাদার। অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে কবিতা আবৃত্তি ও গান পরিবেশন করেন আগত কবি-সাহিত্যিকরা।

অনুষ্ঠানে অজেয় নারী সম্মাননা, আলোচিত লেখক সম্মাননা, প্রাণের মেলা সাহিত্য, সাংবাদিকতা ও মানবতার সেবায় অবদান রাখার জন্য বেশ কিছু গুণি ব্যক্তিকে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। এছাড়া আমন্ত্রিত কবি, সাহিত্যিক ও সাহিত্যানুরাগীদের মধ্যে সাহিত্যের পথে হাঁটার স্বীকৃতিস্বরূপ সম্মাননা প্রদান করে উৎসাহিত করা হয়। পুরো অনুষ্ঠানটি গবেষণামূলক পত্রিকা ধ্রুববাণী’র অফিসিয়াল পেইজ (দৈনিক ধ্রুববাণী) থেকে সরাসরি লাইভ সম্প্রচার করা হয়।

উল্লেখ্য, শহীদ বুদ্ধিজীবীদের রেখে যাওয়া আদর্শ ও পথ অনুসরণ করে, তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সাহিত্যপ্রেমীদের সুস্থ সাহিত্য বিকশিত করার লক্ষ্যে ‘বিশুদ্ধ সাহিত্য চর্চায় এগিয়ে যাক সাহিত্য সমাজ, জেগে উঠুক মানবতা’ -এই স্লোগানকে সামনে রেখে-২০১৯ খ্রিস্টাব্দের ১৪ই ডিসেম্বর কবি মোঃ বেল্লাল হাওলাদারের হাত ধরে গ্রুপটির আত্মপ্রকাশ ঘটে। দেশের অন্যতম প্রধান সাহিত্য গ্রুপের মধ্যে ‘প্রাণের মেলা জাতীয় কবি পরিষদ’ সকল সাহিত্যপ্রেমী মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: