• সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

সুন্দরবন রক্ষায় কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা করেছে সরকারঃ বনমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৭:২১, ২১ অক্টোবর ২০২১

ফন্ট সাইজ
সুন্দরবন রক্ষায় কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা করেছে সরকারঃ বনমন্ত্রী

“সুন্দরবন সংরক্ষণে সরকারের দৃঢ় অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে সুন্দরবনসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল এর জন্য কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা (Strategic Environmental Assessment  বা  SEA) কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়ার সংগে সম্পৃক্ত নীতি, পরিকল্পনা ও কার্যক্রম বাস্তবায়নের ফলে যাতে সুন্দরবনের ক্ষতি না হয় বরং এর সংরক্ষণ নিশ্চিত করা যায়, সেই লক্ষ্যে এই কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা সম্পন্ন করা হচ্ছে।”

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ও সুন্দরবনের জন্য প্রস্তুতকৃত খসড়া কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা (SEA) প্রতিবেদন এবং কৌশলগত পরিবেশ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা (SEMP) বিষয়ে আয়োজিত এক মত-বিনিময় সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী জনাব শাহাব উদ্দীন এমপি এসব কথা বলেন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও জানান, “পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রস্তুতকৃত খসড়া কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা প্রতিবেদন (SEA Report) এবং কৌশলগত পরিবেশ ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা (SEMP) সুন্দরবন সংরক্ষণে সুস্পষ্ট গাইড লাইন প্রদান করেছে। SEMP অনুযায়ী দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করলে আমরা সুন্দরবন সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে পারবো। এই জন্য উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নকারী মন্ত্রণালয় ও বিভাগ সমূহের সচেতনতা ও আন্তঃমন্ত্রণালয় সমন্বয়ের কোনো বিকল্প নেই।” 

বিশেষ অতিথির বক্তেব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী, বেগম হাবিবুন নাহার  এম. পি. বলেন “সাগর ও নদী বক্ষে জেগে ওঠা ভূমিতে প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট সুন্দরবন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল তথা সমগ্র বাংলাদেশকে ঘূর্ণিঝড়, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষা করে চলেছে। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক এই ম্যানগ্রোভ বনে বাঘ, জলজ স্তন্যপায়ী প্রাণী, সরীসৃপ, পাখি ও অন্যান্য বিপদাপন্ন বিরল প্রাণীর বসতি। সমৃদ্ধ জীববৈচিত্র ও বাস্তুসংস্থানগত দিক থেকে সুন্দরবনের স্থানীয়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গুরুত্ব অপরিসীম। প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর এই বন এক বিশাল জনগোষ্ঠীর জীবিকার উৎস। সুন্দরবনের অসামান্য সার্বজনীন মূল্য অপরিসীম।”

সভাপতির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় এর সচিব জনাব মো. মোস্তফা কামাল বলেন, “কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা বা SEA বাংলাদেশের জন্য নতুন একটি বিষয়। আমরা Environmental Impact Assessment (EIA) এর সংগে অধিক পরিচিত। ইতোপূর্বে স্বল্প পরিসরে ২/১ টি SEA কাজ সম্পন্ন হওয়াতে এই বিষয়ে এখনও আমাদের ধারণা কম। বাংলাদেশে চলমান SEA এর কাজ সমূহের মধ্যে আলোচ্য প্রকল্পের SEA কাজের পরিধি ও অংশীজন বিবেচনায় সবচেয়ে বড়।”

মত-বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল, অত্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আহমদ শামীম আল রাজী, মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী, প্রধান বন সংরক্ষক এবং প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. জহির ইকবাল, উপ-বন সংরক্ষক, বন অধিদফতর। 

মত-বিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিবৃন্দ এবং অধিদফতরের মহাপরিচালক/ প্রধান ও প্রতিনিধি, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার সম্মানিত প্রতিনিধি, SEA কাজে নিয়োজিত পরামর্শক  ও ফোকাল পয়েন্টগণ এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিরা।

 

বিভি/কেএস/রিসি 

মন্তব্য করুন: