• NEWS PORTAL

  • বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯

কৃষিপণ্যের উদ্ভাবনী হাট-কৃষককেন্দ্র, এক আঙিনায় মিলছে সকল সেবা

জিয়াউল হক সবুজ

প্রকাশিত: ১৬:০৬, ২৬ মে ২০২২

ফন্ট সাইজ
কৃষিপণ্যের উদ্ভাবনী হাট-কৃষককেন্দ্র, এক আঙিনায় মিলছে সকল সেবা

ন্যায্য দামে কৃষিপণ্য বিক্রি, সংরক্ষণ এবং আর্থিক লেনদেনের সুরক্ষায় দেশের প্রত্যন্ত জেলায় এক আঙ্গিনায় চালু হয়েছে কৃষককেন্দ্র। রংপুর ও দিনাজপুরের ২০টি কৃষক কেন্দ্রে নির্বিঘ্নে লেনদেন করছেন চাষীরা। সেইসাথে ফসল ফলাতে একই আঙ্গিনায় চালু হওয়া এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে দেয়া হচ্ছে প্রয়োজনীয় কৃষিঋণ। সবই সম্ভব হয়েছে ব্যাংক এশিয়ার 'গ্রোয়িং টুগেদার' প্রকল্পের কল্যাণে। 

এজেন্ট ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে রংপুর ও দিনাজপুর অঞ্চলের এক লাখ ১০ হাজার কৃষককে ব্যাংকিং সেবার আওতায় এনেছে ব্যাংক এশিয়া। 

কৃষকদের জন্য এক জায়গায় সব সেবা সহজলভ্য করতে ২০১৮ সালে শুরু হয় গ্রোয়িং টুগেদার প্রকল্প। মাত্র চার বছরে ২০টি কৃষক কেন্দ্রের মাধ্যমে ১৫ হাজার চাষীকে দেয়া হয়েছে ৩৮ কোটি টাকার ঋণ। যার আওতায় নির্বিঘ্নে চলছে পণ্য বেচাকেনা। তুলনামূলক কম সুদে লোন পাওয়ার পাশাপাশি করতে পারছে নিরাপদ লেনদেনও। 

কৃষিপণ্য উৎপাদনে ঋণ বিতরণ থেকে শুরু করে অভিজ্ঞদের সমন্বয়ে পরামর্শও মিলছে এক ছাদের নিচে। তারা বলছেন, কৃষক কেন্দ্রের সফলতার এ মডেল অন্য জেলায় ছড়িয়ে দিলে নিশ্চিত হবে কৃষিপণ্যের নায্যদর।  

এসইও এবং হেড অব ব্রাঞ্চ মোঃ নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, টাকা জমা-উত্তোলন থেকে শুরু করে কৃষকদের লোন পাওয়া সহজ করতে প্রতিনিয়ত রয়েছে ব্যাংকারদের তদারকি। কৃষকরা চাহিদানুযায়ী ঋণ পেলে অনাবাদী জমির পাশাপাশি কমবে খাদ্য সংকটও। 

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: