• NEWS PORTAL

  • শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

Inhouse Drama Promotion
Inhouse Drama Promotion

৩০ ব্যাংকের এমডি যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে, আছেন সন্দেহভাজন ব্যক্তিও

প্রকাশিত: ১৯:৪৬, ১৮ মে ২০২৪

ফন্ট সাইজ
৩০ ব্যাংকের এমডি যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে, আছেন সন্দেহভাজন ব্যক্তিও

অর্থ পাচার প্রতিরোধ সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন দেশের সরকারি-বেসরকারি প্রায় ৩০টি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)। আর ওই অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। এছাড়া অফশোর ব্যাংকিং হিসাবের আওতায় প্রবাসীরা যাতে দেশের বিভিন্ন ব্যাংকে ডলার জমা রাখতে উদ্বুদ্ধ হন, সে জন্য আয়োজিত নানা প্রচারণায় অংশ নেবেন তারা। 

তবে সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকের এমডিদের সঙ্গে থাকা কিছু ব্যক্তিকে নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। কারণ ওই তালিকায় রয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের বিতর্কিত কর্মকর্তা ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমানও। বাংলাদেশ ব্যাংকের ২০১৬ সালের রিজার্ভ চুরির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তৎকালীন ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী ও এই কাজী ছাইদুর রহমানের নাম রয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কেলেঙ্কারিতে সবচেয়ে সমালোচিত ব্যক্তিও তিনি। 

এছাড়াও ঋণ কেলেঙ্কারীতে সহায়তা আর অর্থ পাচারেও তার নাম যুক্ত রয়েছে। আর তিনিই যাচ্ছেন অর্থ পাচার প্রতিরোধ-সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে। তাই বিতর্কিত এই ডেপুটি গভর্নরের যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

জানা গেছে, আগামী ২৪ মে নিউইয়র্কে একটি হোটেলে প্রবাসীদের জন্য অফশোর ব্যাংকিং ফিক্সড ডিপোজিট-সংক্রান্ত প্রচারণা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান। বিশেষ অতিথি থাকবেন নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মুহাম্মদ আবদুল মুহিত, ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমান, নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল মোহাম্মদ নাজমুল হুদা। 

ওই অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আর এফ হোসেন, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এমডি আবুল কাশেম মো. শিরিন, ব্যাংক এশিয়ার এমডি সোহেল আর কে হুসেইন, অগ্রণী ব্যাংকের এমডি মুরশেদুল কবীর ও সিটি ব্যাংকের এমডি মাসরুর আরেফিন। জানা গেছে, এ অনুষ্ঠানের খরচও বহন করবে উল্লিখিত ব্যাংকগুলো।

পাশাপাশি একই সময়ে ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিসের আয়োজনে আন্তর্জাতিক ব্যাংক সম্মেলনে অনুষ্ঠিত হবে। এ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন আরও ২৫ জন এমডি। জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংক ইতিমধ্যে এসব ব্যাংক এমডির বিদেশ যাওয়া-সংক্রান্ত নথি অনুমোদন করেছে। তবে ডলার-সংকটের মধ্যে একসঙ্গে প্রায় অর্ধেক ব্যাংক এমডির বিদেশে যাওয়া নিয়ে ব্যাংক খাতে নানা প্রশ্ন উঠেছে।

এদিকে দেশের ডলার-সঙ্কটের এ সময়ে ব্যাংক খাতে ডলারের জোগান বাড়াতে বিভিন্ন ব্যাংক অফশোর ব্যাংকিংকে বিশেষ জোর দিয়েছে। এ জন্য নানা ধরনের প্রচার-প্রচারণাও চালাচ্ছে ব্যাংকগুলো।

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: