• NEWS PORTAL

  • শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

Inhouse Drama Promotion
Inhouse Drama Promotion

শর্ত পূরণ করলে সালমানকে ক্ষমা করতে রাজি বিষ্ণোই গ্যাং

প্রকাশিত: ১৩:২১, ১৬ মে ২০২৪

ফন্ট সাইজ
শর্ত পূরণ করলে সালমানকে ক্ষমা করতে রাজি বিষ্ণোই গ্যাং

বি- টাউনের অন্যতম সফল ও দর্শকপ্রিয় অভিনেতা সালমান খান,বিশ্বজুড়ে রয়েছে তার অসংখ্য অনুরাগী। বলিউডের ‘দাবাং খান’ নামে সুপরিচিত এই তারকা গত বছর থেকে একের পর এক মৃত্যুর হুমকি পেয়ে আসছিলেন। একাধিক বার সালমানকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন জেলবন্দি গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই। সর্বশেষ মৃত্যু ভয় দেখাতে নায়কের বাড়ির সামনে চার রাউন্ড গুলি ছোঁড়েন বন্দুকধারীরা ও একই সাথে ফেসবুকে আবারো মৃত্যু হুমকি দেয় লরেন্স বিষ্ণোই'র ছোট ভাই আনমোল বিষ্ণোই। তারপর থেকেই সালমানের নিরাপত্তা নিয়ে আরও কড়াকড়ি। তবে এবার হঠাৎ করেই মৃত্যু হুমকির বদলে শর্ত পূরণের বিনিময়ে সালমানকে ক্ষমা করার ঘোষণা দিল বিষ্ণোই সম্প্রদায়।

বলিউড ভাইজান সালমনের কাছে নতুন দাবি রেখেছে ‘অল ইন্ডিয়া বিষ্ণোই সোসাইটি’র। সংস্থার প্রেসিডেন্ট দেবেন্দ্র বুদিয়া জানিয়েছেন, সালমান যদি ক্ষমা চান তা হলে তারা সে বিষয় নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে পারেন। তবে কিছু শর্ত রয়েছে তাঁদের।

১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ শিকারকাণ্ডে সালমান খানের নাম জড়িয়েছিল। এর ‘বদলা নিতে’ সালমানকে খুনের হুমকি দিয়ে আসছে লরেন্স বিষ্ণোই গোষ্ঠী। গত বছর জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ) জানিয়েছিল, জেলবন্দি গ্যাংস্টার বিষ্ণোই যে ১০ জনকে ‘হত্যা তালিকা’য় রেখেছে, তাদের মধ্যে প্রথমেই রয়েছে সালমানের নাম। তারপর থেকেই এই বলিউড তারকাকে নানাভাবে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন এই গ্যাংস্টার। এর মাঝেই চলতি বছর অভিনেতার বাড়িতে গুলি চালানোর মত কাণ্ড ঘটান তাঁরা। এই ঘটনার পর থেকে ইতিমধ্যে ছয় জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এবার ভাইজানের কাছে নতুন দাবি জানিয়েছেন ‘অল ইন্ডিয়া বিষ্ণোই সোসাইটি। এই সংগঠনের প্রেসিডেন্ট দেবেন্দ্র বুদিয়া জানিয়েছেন সালমান যদি ক্ষমা চান তা হলে তারা সে বিষয় নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে পারেন।

ঘটনার সূত্রপাত ১৯৯৮ সালে। সেবার যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিংয়ের ফাঁকে ১ অক্টোবর মাঝরাতে সইফ আলি খান, তব্বু, সোনালি বেন্দ্রে ও নীলমের সঙ্গে একটি মারুতি জিপসিতে বেরিয়েছিলেন সালমান। বিষ্ণোইদের অভিযোগ, সেই সময়েই যোধপুরে কাছে বিষ্ণোই সম্প্রদায়ের কঙ্কনি গ্রামে নিজের রাইফেল থেকে গুলি করে দু’টি কৃষ্ণসার হরিণ মারেন বলিউড সুপারস্টার। কৃষ্ণসার বিপন্ন প্রাণী। বিষ্ণোইরা কৃষ্ণসারের রক্ষক হিসেবে মনে করেন নিজেদের। সালমানের জিপসি গাড়ির নম্বর পুলিশকে দিয়েছিলেন তারা। বন্যপ্রাণ আইনে ২০ বছর ধরে মামলা তারাই চালিয়েছেন। এখন পর্যন্ত এই ঘটনা ভুলতে পারেননি বিষ্ণোই সম্প্রদায়। তাই তারা প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল।

অবশেষে বিষ্ণোইরা তাদের হত্যা পরিকল্পনা থেকে সরে এসে নিজেদের দাবি জানালো। তাদের দাবি, বিষ্ণোই সমাজের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে সালমনকে। শুধু তাই নয়, তাদের মন্দিরে এসে ক্ষমা চাইতে হবে তাকে। শপথ নিতে হবে, ভবিষ্যতে এমন ভুল করবে না। এখানেই শেষ নয়, বন্যপ্রাণ সংরক্ষণের কাজে ব্রতী হতে হবে। তবে তাকে ক্ষমা করার কথা ভাববে তারা।

বিষ্ণোই সোসাইটির দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এখনো কোন মন্তব্য করেননি বলিউড সুপারস্টার সালমান খান।

উল্লেখ্য, সালমান খান বর্তমানে আগামী ঈদুল ফিতরের জন্য নির্মিতব্য সিনেমা 'সিকান্দার"এর প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত আছেন। এই সিনেমায় তার বিপরীতে অভিনয় করবেন রাশমিকা মানদানা।

 

বিভি/জোহা/রিসি 

মন্তব্য করুন: