• NEWS PORTAL

মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রতিবেশীর জমি ধার নিয়ে কৃষিকাজ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি!

প্রকাশিত: ২৩:৩৭, ১২ মার্চ ২০২৩

আপডেট: ১০:৩৪, ১৩ মার্চ ২০২৩

ফন্ট সাইজ

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) করেন কৃষি কাজ। নিজেই কাটেন মাটি, ফলান সবুজ ফসল। তাও আবার প্রতিবেশীর জমি ধার নিয়ে। অবিশ্বাস্য মনে হলেও দীর্ঘদিন ধরে এই কাজ করে আসছেন চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাছিম আখতার। 

আগে ঢাকা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়-ডুয়েটে শিক্ষকতা করতেন নাছিম আখতার। সেই সুবাদে পরিবার নিয়ে বসবাস করেন গাজীপুরের জয়দেবপুরে ডুয়েট এলাকায়। এখানেই নিজের কেনা একখন্ড জমির পাশাপাশি বাবা ছেলে মিলে চাষ করেন প্রতিবেশিদের পতিত জমিও। 

প্রতিদিন ভোর হলেই ছেলেকে নিয়ে কৃষি জমিতে চলে আসেন ড. নাছিম আখতার। অন্তত আধা ঘণ্টা কাটেন মাটি। তারপর জমির নানান ফসলের পরিচর্যা শেষে সংগ্রহ করেন নিজের ফলানো শাক-সবজি। সবশেষ গাছে পানি দিয়ে চলে যান প্রতিদিনের কাজে। সরকারের বড় কর্মকর্তা হয়েও কেন কৃষি কাজ করেন জানতে চাইলে এই উপাচার্যের দাবি শরীর ও মন সুস্থ রাখতেই এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ তাঁর।

ব্যবসায়িক নয়, নিজের খাওয়ার জন্য ফসল উৎপাদন। তাই ব্যবহার করেন না কোনো সার-কিটনাশক। এতে স্বাস্থ্যসম্মত খাবারও নিশ্চিত হয় বলে মনে করেন তিনি। 

এভাবেই নিজ হাতে মাটি খনন করেন তিনি।

বর্তমান তরুণ সমাজের অনেকেই কৃষি কাজকে গরিবের পেশা বলে মনে করেন। এ নিয়ে জোর আপত্তি এই অধ্যাপকের। তাই নিজের ছেলেকেও যুক্ত করেছেন কৃষি কাজে। বলছেন, এতে হতাশা কমার পাশাপাশি বাড়ে কর্মদক্ষতা। সুস্থ থাকে শরীর মনও। 

হীনমন্যতায় না ভুগে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে নিজ স্বাস্থ্য এবং দেশের স্বার্থে সকল পতিত জমি চাষে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান ড. নাছিম আখতার।

ড. নাছিম আখতার কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন ইউক্রেন জাতীয় কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। পরে রাশিয়ার মস্কো স্টেট একাডেমি অফ ফাইন কেমিক্যাল টেকনোলজি থেকে ডেটা ওয়্যারহাউজ ও মাইনিং বিষয়ে অর্জন করেন পিএইচডি ডিগ্রি। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে কৃষিকাজসহ কায়িক পরিশ্রমের শিক্ষা পেয়েছেন বলেও জানান এই অধ্যাপক।

বিভি/এজেড

মন্তব্য করুন: