• বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২ | ৭ মাঘ ১৪২৮

BVNEWS24 || বিভিনিউজ২৪

এখনো ছাপানো হয়নি দুই কোটি ২০ লাখ বই

আনোয়ার হোসাইন সোহেল

প্রকাশিত: ১৩:৫০, ৫ জানুয়ারি ২০২২

আপডেট: ১৬:৪৪, ৫ জানুয়ারি ২০২২

ফন্ট সাইজ
এখনো ছাপানো হয়নি দুই কোটি ২০ লাখ বই

করোনাভাইরাসের অভিঘাতে ২০২০-২০২১ -এর মতো এবারও পহেলা জানুয়ারি বই বিতরণ উৎসব হয়নি। তবে নির্ধারিত দিনেই শুরু হয়েছে বই বিতরণ কার্যক্রম। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) তড়িঘড়ি করলেও মাধ্যমিকের প্রায় দুই কোটি ২০ লাখ বই এখনো ছাপানোই হয়নি ।  

এনসিটিবি’র সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ২০২২ শিক্ষাবর্ষে চার কোটি ১৭ লাখ ২৬ হাজার ৮৫৬ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে বিনামূল্যে ৩৪ কোটি ৭০ লাখ ২২ হাজার ১৩০টি বই বিতরণ করা হবে। 

গত ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সরবরাহ করা হয়েছে ৩১ কোটি ১৯ লাখ ৮২ হাজার ৭৮৭টি বই। এর মধ্যে প্রাথমিকের ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৭৭৪টির মধ্যে ৯ কোটি ২৭ লাখ ৬২ হাজার ২৩২টি। এখনো ৭০ লাখ ৯৬ হাজার ৫৪২টি বই সরবরাহ বাকি রয়েছে। 

এছাড়া মাধ্যমিকের ২৪ কোটি ৭১ লাখ ৬৩ হাজার ২৫৬টির মধ্যে ২১ কোটি ৯২ লাখ ২০ হাজার ৫৫৫ বই সরবরাহ করা সম্ভব হয়েছে। গত ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত এক কোটি ৩০ লাখ বই সরবরাহ করা হয়েছে। সে হিসাবে এখনো ছাপা হয়নি দুই কোটি ২০ লাখ বই। 

জানা গেছে, চলতি শিক্ষাবর্ষে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য ব্রেইল পদ্ধতিতে পাঠ্যপুস্তক ও পাঁচটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের জন্য মাতৃভাষায় পৃথক পাঠ্যপুস্তক প্রস্তুত করা হয়েছে।

গত ৩০ ডিসেম্বর রাজধানীর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘পাঠ্যপুস্তক উৎসব’ উদ্বোধন করেন। ওই অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছে, ‘নতুন বছরের ৯৫ শতাংশ বই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। বাকি ৫ শতাংশ বই জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে স্কুলগুলোতে পৌঁছে দেওয়া হবে।  

২০২২ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক স্তরে ৯ কোটি ৩০ লাখ ৩৪ হাজার ৩০টি, প্রাক-প্রাথমিক স্তরে ৬৬ লাখ ৫ হাজার ৪৮০টি,  ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীর (চাকমা, মারমা, ত্রিপুরা, গারো ও সাদরী) জন্য ২০ জেলায় ২ লাখ ১৯ হাজার ৩৬৪টিসহ মোট ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮৭৪টি বই বিতরণ করা হবে। প্রাক প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের জন্য পাঠ্যপুস্তক-পঠন-পাঠন সামগ্রীর মধ্যে আমার বই এবং অনুশীলন খাতা বিতরণ করা হবে যথাক্রমে ৩৩ লাখ ২ হাজার ৭৪০টি। অন্যদিকে জেলা-উপজেলা ও থানার জন্য ৫১২টি উপজেলা ও থানায় বাংলা ভার্সনে এবং ৫৬টি জেলায় ইংরেজি ভার্সনের বই বরাদ্দ করা হবে।  

শিক্ষার্থীদের হাতে এখনো বই না পৌঁছানোর প্রসঙ্গে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) অধ্যাপক মো. মশিউজ্জামান বাংলাভিশন ডিজিটালকে জানান, ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে আমরা প্রাথমিকের শতভাগ বই স্কুলগুলোতে পাঠিয়ে দিয়েছি। মাধ্যমিকের ৯৫ শতাংশ বই পাঠানো হয়েছে। বাকি ৫ শতাংশের কাজ চলছে। 

কতোদিন নাগাদ শতভাগ বই পাবে শিক্ষার্থীরা জানতে চাইলে তিনি বলেন, উপজেলা পর্যায়ে কিছু প্রতিষ্ঠানের হাতে হয়তো বই এখনো পৌঁছায়নি। আমরা আশা করছি, এ সপ্তাহের মধ্যেই সব শিক্ষার্থী বই পেয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, ২০১২ থেকে বছরের প্রথমদিন সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে বই বিতরণ উৎসবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিচ্ছে।


 

বিভি/রিসি 

মন্তব্য করুন: